আইটির কাজে সামনে সুযোগ বাংলাদেশিদের?

যুক্তরাষ্ট্রের চাকরির বাজারের অন্যতম শীর্ষ ওয়েব পোর্টাল ইনডিড ডট কম। এখান থেকে জানা যাচ্ছে, ঠিক এই মুহূর্তে প্রায় ১ লাখ ১১ হাজার সফটওয়্যার টেস্টারের পদ খালি আছে। অন্যান্য জব সাইটগুলোতেও এমন তথ্য আছে। ফলে এই মুহূর্তে, যুক্তরাষ্ট্রের শ্রমবাজারে সফটওয়্যার টেস্টিং-এর কাজের অভাব নেই ।
সফটওয়্যার টেস্টিং যদি একটি খাত হয়, তাহলে মোবাইল অটোমেশন, সাইবার সিকিউরিটি, ডেটাবেইস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (জাভাস্ক্রিপ্ট, সিকিউএল), ফ্রন্ট এন্ড ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদি কাজের বাজার যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে বিস্তৃত হচ্ছে। এই বাজারে এখন বলা চলে প্রায় একক নিয়ন্ত্রণ ভারতীয়দের হাতে।

কেমন ভাবে এটা ভারতীয়দের হাতে সেটা বোঝার জন্য কয়েকটি উদাহরণ যথেষ্ট।

শীর্ষস্থানীয় আইটি প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফটের প্রধান নির্বাহী সত্য নাদেলা একজন ভারতীয়। আবার গুগলের প্রধান নির্বাহী পদে কিছুদিন আগে যোগ দিয়ে হইচই ফেলে দিয়েছেন সুন্দর পিচাই নামের আরেক ভারতীয়। মাইক্রোসফট বিশ্ববিখ্যাত মোবাইল কোম্পানি নকিয়া কিনে নেওয়ার পর এর প্রধান নির্বাহী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে ভারতীয় বংশোদ্ভূত রাজীব সুরিকে। সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠান এডোবির প্রধান নির্বাহী হিসেবে ১৯৮৮ সাল থেকেই কাজ করছেন, হায়দ্রাবাদে জন্ম নেওয়া শান্তনু নারায়ণ। এই তালিকা আরও লম্বা। যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি বাজারে ভারতীয়দের দখল এতটাই প্রতিষ্ঠিত যে, এর প্রভাব অভিবাসন, বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণ, সবখানেই।
এমনকি এখানে এখন ভারতীয়রা বড় বড় বিনিয়োগকারীর ভূমিকায়। সিএনবিসির এক প্রতিবেদনের বলা হয়েছে ২০১৭ সালে ভারতীয় ১০০ মালিকানার প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেরাই বিনিয়োগ করেছে প্রায় ১৭.৯ বিলিয়ন ডলার। আর নিজস্ব বিনিয়োগের প্রতিষ্ঠানে তারা কর্মচারী হিসেবে প্রাধান্য দেয় ভারতীয়দের। ২০১৭ সালে এই ১০০ প্রতিষ্ঠান ১ লাখের বেশি চাকরি দিয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান গোল্ডম্যান স্যাকসের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি শ্রমবাজারে প্রবেশ করেছে ১ লাখ ৯৫ হাজার ২৫৭ জন ভারতীয়, যা মোট এই খাতে বরাদ্দ করা এইচওয়ানবি ভিসার ৭০ ভাগ। এই হার ২০১৬ ও ২০১৭ সালে অব্যাহত ছিল। তবে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমেরিকা ফার্স্ট অর্থনীতির নীতির কারণে ভারতীয়দের ক্ষেত্রে এইচওয়ানবি ভিসা সংকুচিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
এটাকে সুযোগ হিসেবে দেখছেন বাংলাদেশিরা। প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান পিপল অ্যান্ড টেকের প্রতিষ্ঠাতা প্রকৌশলী আবুবকর হানিপ এ প্রসঙ্গে বলছেন, ‘দেখুন, প্রতি বছর ৬৫ হাজার লোক এইচওয়ানবি ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে আসে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ। সেখানে আমাদের নাগরিকেরা সিটিজেনশিপ ও গ্রিনকার্ড নিয়ে ট্যাক্সি চালাচ্ছেন, কিংবা নিম্ন আয়ের জব করছেন। আমাদের মধ্যে যদি কেউ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষতা অর্জন করতে পারে, তাহলে সহজেই এই মার্কেটে ভারতীয়দের সঙ্গে টেক্কা দিতে পারবে বাংলাদেশিরা।’
মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম বাংলাদেশ থেকে নতুন আসা একজন অভিবাসী। আমেরিকা পর্দাপণের তিন মাসের মধ্যেই বছরে ১ লাখ ২৫ হাজার ডলার বেতনে চাকরি পেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ একটি আইটি প্রতিষ্ঠানে। আবু হানিপের মালিকানাধীন প্রযুক্তি প্রশিক্ষণ এবং জব রিপ্লেসমেন্ট প্রতিষ্ঠান পিপল অ্যান্ড টেকের ঢাকা শাখা থেকে তিনি কোর্স করেছিলেন। এখানে এসে বাকি প্রশিক্ষণ নিয়েই তিনি আমেরিকার মাটিতে পা দেওয়ার ৩ মাসের মধ্যেই চাকরি করছেন। মিশিগানের মোটর গাড়ি উৎপাদন প্রতিষ্ঠান জেনারেল মোটর্স-এর সাইবার সিকিউরিটি অফিসার হিসেবে সম্প্রতি নিয়োগ পেয়েছেন বাংলাদেশি ইকবাল আহমেদ। তিনি, মিশিগানের ওয়েন ইউনিভার্সিটি থেকে ১ বছরের একটি কোর্স করেছেন। এই দুজন নবাগত চাকরিজীবীর সঙ্গে কথা হয় আলাদাভাবে।
জাহিদুল ইসলাম বলছিলেন, ‘এখন তো এই ইন্ডাস্ট্রির পুরোটাই বলা চলে ভারতীয়দের দখলে। তবে একদিন বাংলাদেশ নেতৃত্ব দেবে এখানে। কবে, সেটা এখনই স্পষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। তবে একটু সমন্বিত উদ্যোগ নিলে, সেটা খুব সহসাই দেখা যেতে পারে।’
ইকবাল আহমেদ বলেন, ‘আমি যে প্রতিষ্ঠানে কাজ করি সেখানে সাইবার সিকিউরিটি পদে আমিই আছি একমাত্র। সেখানে ওই পদে আরও অন্তত ৬০টি পদ শূন্য আছে। ১০ জন কাজ শুরু করলে ৫ জনকেই মনে হয় ভারতীয়। সেখানে আমরা মাত্র ঢুকতে শুরু করেছি। বাংলাদেশ একদিন এই খাতে নেতৃত্ব দেবে।’
টেক্সাস ভিত্তিক বাংলাদেশি প্রযুক্তি উদ্যোক্তা জন সাখাওয়াত টেকনোসফট নামে একটি বড় প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করেন। বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে এর শাখা রয়েছে। প্রথম আলোর সঙ্গে আলাপকালে সাখাওয়াত অবশ্য এই সম্ভাবনার কথা একেবারে উড়িয়ে দেননি। তিনি বলেন, ‘ভারতীয়দের ওপরে ওঠা সম্ভব হবে না আপাতত। তবে, আমরা যেটা দেখছি, আমাদের মধ্যে যারা এই খাতে নেমেছে, তারা অনেকখানি ভালো করছে। আমাদের অনেকেই ম্যানেজমেন্ট লেভেল এ কাজ করছে। ভারতীয়রা হয় একেবারে ওপরের লেভেল আছে, নইলে এন্ট্রি লেভেল এ কাজ করছে, যেখানে আমরা অনেকেই মধ্যম মানের লেভেল এ কাজ করছে। এইচ ওয়ান ভিসার কারণে ভারতীদের আনাগোনা কমে গেছে। বাংলাদেশে যদি আইটি সম্পর্কিত শিক্ষার একটু উন্নয়ন ঘটানো যেত, তাহলে এখানে আমরা হয়তো অনেক এগিয়ে যেতাম।’
জন সাখাওয়াত বলছিলেন, এই চাকরির বাজারটিতে বাংলাদেশিরা যে এগিয়ে আসছে সেটা বোঝা যায় সাম্প্রতিক প্রবণতা পর্যালোচনা করলে। টেক্সাসে ১০০টি জব ওপেনিং থাকলে সেখানে ৫ জন বাংলাদেশি ঢুকছেন গড়ে। এখানে যারা আইটির ওপর পড়াশোনা করেছে আমার জানা মতে একজনও নেই যে চাকরি পায়নি। অনেক বাংলাদেশি ডিসিতে চলে গেছে যুক্তরাষ্ট্রের নানান জায়গা থেকে। সিয়াটলেও একটি আলাদা সিলিকন ভ্যালির মতো বড় বড় কোম্পানি হচ্ছে।
সম্প্রতি আবু হানিপ তাঁর প্রতিষ্ঠান থেকে আড়াই শ দক্ষ প্রযুক্তি কর্মী তৈরি উদ্যোগ নিয়েছেন যারা যুক্তরাষ্ট্রের আইটি জব মার্কেটে কাজের সুযোগ করে দেবেন।
তবে যেতে হবে বহু দুর। ভারতীয়দের যে হারে বেড়েছে সেই হারে বাংলাদেশিদের পদচারণা এখনো অনেক কম। তবে প্রযুক্তি শ্রমবাজারে বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণ বাড়ছে বাড়ছে বলে মনে করেন আরেকজন উদ্যোক্তা সাহেদ ইসলাম।
এসজে ইনোভেশনের প্রধান উদ্যোক্তা সাহেদ ইসলাম অবশ্য বলছিলেন, ‘গত ৪-৫ বছর এই হার আমরা দেখছি। সেখানে ১ শতাংশও বাংলাদেশি আছে বলে মনে হয় না। তবে আউটসোর্সিং-এর কাজে বাংলাদেশিরা এগিয়ে আসছে। এর অনেক কারণের একটি হলো ইংরেজি শিক্ষার বিস্তার এবং বাংলাদেশে ইন্টারনেট এখন গতি বৃদ্ধি।’

সূত্র:প্রথম আলো

Share

এবার চাঁদে বসছে মোবাইল টাওয়ার!

Next Story »

ওয়ালটন এনেছে ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগযুক্ত ফিচার ফোন

Leave a comment

LifeStyle

  • ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে কাঁচামরিচ!

    3 weeks ago

    রান্নাঘরের অন্যতম প্রয়োজনীয় একটি উপাদান হলো কাঁচামরিচ। রান্নায় বা সালাদে তো বটেই, কেউ কেউ ভাতের সঙ্গে আস্ত কাঁচামরিচ খেতেও পছন্দ করেন। কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না যে ...

    Read More
  • নিম পাতার গুণাগুণ

    3 weeks ago

    নিমগাছের পাতা, তেল ও কাণ্ডসহ নানা অংশ চিকিৎসা কাজে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। নানা রোগের উপশমের অদ্ভুত ক্ষমতা রয়েছে এ গাছের। এ লেখায় থাকছে তেমনই কিছু ব্যবহার। ম্যালেরিয়া ...

    Read More
  • ডায়েটের কিছু ভুল

    4 weeks ago

    আজকাল মোটা হওয়া যেন কারোই পছন্দ না। কিন্তু ডায়েট করেও কাঙ্ক্ষিত ফল পাচ্ছেন না অনেকেই। কারণ, ডায়েটের সময় আমরা এমন কিছু ভুল করি যেগুলোর জন্য মেদ কমাতো ...

    Read More
  • পুষ্টিগুণে ভরপুর আনারসের জুস

    4 weeks ago

    আনারস শুধু সুস্বাদের জন্যই নয়, স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী। রসালো এ ফল জুস তৈরি করেও খাওয়া যায়। সারাদিন রোজা রেখে সুস্থ থাকতে অসংখ্য পুষ্টিগুণে ভরপুর আনারসের জুস যেমন ...

    Read More
  • অ্যাসিডিটিতে এখন যেমন খাবার…

    4 weeks ago

    রোজার মাসে সবাই যেন খাবারের প্রতিযোগিতায় নেমে পড়ে। সারা দিন না খাওয়ার অভাবটুকু ইফতারে পুষিয়ে নেওয়ার জন্য কি এই প্রতিযোগিতা? কে কত খেতে বা রান্না করতে পারে। ...

    Read More
  • ইফতারে স্বাস্থ্যকর ফল পেয়ারা

    4 weeks ago

    প্রতিদিনের ইফতারে ভাজাপোড়া কম খেয়ে বিভিন্ন ফল খাওয়া উত্তম বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাই আপনার ইফতারে থাকতে পারে অতি পরিচিত এই ফলটি। প্রতিদিন মাত্র ১টি পেয়ারা আপনার ...

    Read More
  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় লেবুর শরবত

    4 weeks ago

    গরমে যখন তীব্র দাবদাহে ক্লান্ত, ঠিক তখনই ইফতারে এক গ্লাস লেবুর শরবত হলে প্রাণটা জুরিয়ে যায়। শুধু শরবত হিসেবেই নয়, ওজন কমাতেও অনেকেই লেবুর শরবত খান। কিন্তু ...

    Read More
  • অ্যালার্জি ও সর্দি হয় যে কারণে

    4 weeks ago

    সাধারণত যারা বেশি পরিমাণে ঘরের বাইরে থাকেন তাদের মধ্যে সর্দি বা এলার্জির পরিমাণ বেশি লক্ষ্য করা যায়। তবে ঘরের ভেতরে অনেক বস্তু রয়েছে যেগুলো কারো মধ্যে এলার্জি ...

    Read More
  • প্রতিদিন কাঁচা পেঁয়াজ খেলে কি উপকার হয়?

    1 month ago

    ‘যত কাঁদবেন, তত হাসবেন’- পেঁয়াজের ক্ষেত্রে এই কথাটা দারুণভাবে কার্যকরী। কারণ এই সবজি কাটতে গিয়ে চোখ ফুলিয়ে কাঁদতে হয় ঠিকই। কিন্তু এই প্রাকৃতিক উপাদানটি শরীরেরও কম উপকার ...

    Read More
  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় হলুদ

    1 month ago

    রান্নাে মশলা হিসেবে অতি পরিচিত হলুদ। ভিটামিন সি, ভিটামিন ই, ভিটামিন কে, ক্যালসিয়াম, কপার, আয়রনের পাশাপাশি এতে আছে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টি অক্সিডেণ্ট, অ্যান্টিভাইরাল, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিকারসিনোজেনিক, অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি ...

    Read More
  • Read

    More