গুঁড়ের যত গুণাগুণ

শীত চলে এসেছে। এবার ঘরে ঘরে নতুন গুঁড়, ঝোলা গুঁড়ের দেখা পাওয়া যাবে।

আর শীত মানেই পিঠে পুলির পার্বণ। তাই যুগলবন্দীতে গুঁড়ের দেখা তো পেতেই হবে। তবে, মুশকিলটা হচ্ছে, আমরা সকলেই প্রায় গুঁড় খাই বছরের এই একটা সময়। যদিও, গুঁড় কিনে রেখে দিলেও মাসের পর মাস ভাল থাকে। আমাদের ধারণা, গুঁড় দিয়ে পিঠে, পুলি, পায়েস আর নাড়ু তৈরি করা যায়। তাই বছরের বাকি সময় গুঁড় নিয়ে আমাদের তেমন মাথাব্যাথা থাকে না। চলুন জেনে নেওয়া যাক গুঁড়ের নানা গুণ সম্পর্কে-

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে:
গুড়ের মিষ্টি এড়িয়ে যাচ্ছেন? ভাবছেন যে অতি মিষ্টি খেলে তো কোষ্ঠকাঠিন্য হতেই পারে। আসলে তা কিন্তু নয়। গুড়ের মিষ্টিতে কোষ্ঠকাঠিন্য হওয়ার কোনও সম্ভাবনা নেই।

উল্টে এই সমস্যা থাকলে তা দূর করতে সাহায্য করবে গুঁড়। এর কারণ গুড় শরীরে হজম করার জন্য দায়ি উৎসেচকের ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে পারে। ফলে পেট খুব তাড়াতাড়ি পরিষ্কার হয়ে যায়।

লিভার ভাল রাখে:
গুড় খেলে লিভারের কাজ ভাল ভাবে হয় এবং লিভারকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। গুড় লিভার থেকে ক্ষতিকারক উপাদান বার করে দিতে সাহায্য করে এবং এতে লিভারের পাশাপাশি শরীরও ভাল থাকে। তাই একটুকরো গুড় খেলে শরীর সুস্থ থাকে।

জ্বর, সর্দি-কাশির হাত থেকে রক্ষা করে:
শীতকাল বা বর্ষাকালে ঘরে ঘরে ঠাণ্ডা লেগে সর্দি, কাশি, জ্বর হতেই থাকে। এই ধরণের সমস্যাকে দূর করতে গুড়ের জুড়ি মেলা ভার। গরম পানির সঙ্গে গুড় মিশিয়ে পান করলে এই ধরণের সমস্যা দূর হয়। এছাড়াও, চায়ের মধ্যে চিনি না মিশিয়ে গুড় মিশিয়ে পান করলেও উপকার পাওয়া যায়।

রক্ত পরিশোধন করে:
গুড় খাওয়ার সব থেকে বড় উপকার হল, এটি রক্ত পরিশোধন করতে ভীষণভাবে সাহায্য করে। নিয়মিত গুড় খেলে রক্ত পরিষ্কার হয় এবং শরীর সুস্থ থাকে। গুড় যেহেতু সরাসরি আখের রস বা খেজুরের রস থেকে সরাসরি তৈরি করা হয়, তাই এটি শরীরের কোনও ক্ষতি করে না। উল্টে শরীরের যত্নে দারুন উপকারি ভুমিকা পালন করে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে:
গুড়ের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। এছাড়াও থাকে জিঙ্ক এবং সেলেনিয়াম। এরফলে, গুড় শরীরকে বিভিন্ন জীবাণু এবং সংক্রমক রোগের হাত থেকে রক্ষা করতে পারে। এছাড়াও, গুড় রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা ঠিক রাখতে সাহায্য করে। তাই গুড় শুধু শরীরকে ভিতর থেকেই নয়, বাইরে থেকে সুস্থ এবং সবল রাখতে পারে।

শরীরকে ভিতর থেকে পরিষ্কার রাখে:
গুড় এমন এক খাদ্য, যা শরীরকে প্রাকৃতিক উপায়ে ভিতর থেকে পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। এই কারণে, বহু চিকিৎসক শরীরকে সুস্থ রাখতে গুড় খাওয়ার পরামর্শ দেন। আসলে গুড় খেলে শরীরের ভিতর থেকে বিষাক্ত উপাদান বেড়িয়ে যেতে পারে। এটি যেমন শ্বাসনালীকে পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। তেমনই ফুসফুস, অন্ত্র এবং পেটে এবং খাদ্যনালী পরিষ্কার রাখতে পারে। যারা কয়লা খনি, দূষণ বা ধুলো বালির মধ্যে কাজ করেন, তাদের জন্য গুড় অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

ঋতুস্রাবকালীন পেটে ব্যাথা দূর করে:
গুঁড়ের মধ্যে যে কত রকমের পৌষ্টিক উপাদান রয়েছে, তা তো আগেই বলা হয়েছে। তাই শরীরকে সুস্থ রাখতে এটি খুবই সাহায্য করে। একইসঙ্গে, গুঁড় দারুণ কাজ করে ঋতুস্রাবকালীন পেটে ব্যাথা দূর করতে এবং পেতে খিঁচ ধরে ব্যাথা হওয়াও রোধ করতে পারে। ঋতুস্রাবের আগে সবথেকে বেশি মানসিক সমস্যা হয়। এই ধরণের উপসর্গকে বলা হয় প্রিমেন্সট্রুয়াল সিন্ড্রোম। এই সমস্যা রোধ করতেও গুঁড় দারুণ কাজ করে।

রক্তাল্পতা কমায়:
গুঁড়ের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে আইরন এবং ফোলেট থাকে, যা রক্তের মধ্যে লোহিত রক্ত কণিকার পরিমাণ সঠিক রাখতে সাহায্য করে। গুঁড় সব থেকে বেশি উপকার করে গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে। তাই এমনি সময় হোক বা গর্ভবতী অবস্থায় হোক, গুঁড় খাওয়া নারীদের জন্য খুবই উপকারি এবং স্বাস্থ্যকর।

পেটের স্বাস্থ্য বজায় রাখে:
গুঁড় পেটের নানারকম রোগ এবং তার কার্যকারিতা বাড়াতে সাহায্য করে। কারণ গুঁড়ের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম থাকে। প্রতি ১০ গ্রাম গুঁড়ের মধ্যে ১৬ মিলিগ্রাম ম্যাগনেসিয়াম থাকে। ফলে নিয়মিত গুঁড় খেলে দৈনিক খনিজের চাহিদা ৪ শতাংশ হারে পূরণ হয়।

পেট ঠাণ্ডা রাখতে সাহায্য করে:
গরমকালে কাজ থেকে বাড়ি ফিরে এলেই গুঁড়ের বাতাসা ভেজানো পানি বা গুঁড়ের সরবত অনেকেই পান করেন। বর্তমানে এই রকম দৃশ্য অনেকটা কমে এলেও কেন অনেকেই এগুলো মেনে চলেন। আসলে দীর্ঘক্ষণ বাড়ির বাইরে রোদের মধ্যে বা গরমের মধ্যে থাকলে শরীর গরম হয়ে ওঠে। এমনকি, পেটের গণ্ডগোলও দেখা যায়। এই অবস্থায় গুঁড়ের সরবত খুবই কাজে দেয়। কারণ, গুঁড়ের সরবত শরীর ঠাণ্ডা রাখতে সাহায্য করে।

সূত্র:বিডি প্রতিদিন

Share

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে যেসব ফল খাবেন

Next Story »

সঙ্গী মিথ্যা বলছে? বুঝবেন যেভাবে

Leave a comment

LifeStyle

  • ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে কাঁচামরিচ!

    3 weeks ago

    রান্নাঘরের অন্যতম প্রয়োজনীয় একটি উপাদান হলো কাঁচামরিচ। রান্নায় বা সালাদে তো বটেই, কেউ কেউ ভাতের সঙ্গে আস্ত কাঁচামরিচ খেতেও পছন্দ করেন। কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না যে ...

    Read More
  • নিম পাতার গুণাগুণ

    3 weeks ago

    নিমগাছের পাতা, তেল ও কাণ্ডসহ নানা অংশ চিকিৎসা কাজে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। নানা রোগের উপশমের অদ্ভুত ক্ষমতা রয়েছে এ গাছের। এ লেখায় থাকছে তেমনই কিছু ব্যবহার। ম্যালেরিয়া ...

    Read More
  • ডায়েটের কিছু ভুল

    4 weeks ago

    আজকাল মোটা হওয়া যেন কারোই পছন্দ না। কিন্তু ডায়েট করেও কাঙ্ক্ষিত ফল পাচ্ছেন না অনেকেই। কারণ, ডায়েটের সময় আমরা এমন কিছু ভুল করি যেগুলোর জন্য মেদ কমাতো ...

    Read More
  • পুষ্টিগুণে ভরপুর আনারসের জুস

    4 weeks ago

    আনারস শুধু সুস্বাদের জন্যই নয়, স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী। রসালো এ ফল জুস তৈরি করেও খাওয়া যায়। সারাদিন রোজা রেখে সুস্থ থাকতে অসংখ্য পুষ্টিগুণে ভরপুর আনারসের জুস যেমন ...

    Read More
  • অ্যাসিডিটিতে এখন যেমন খাবার…

    4 weeks ago

    রোজার মাসে সবাই যেন খাবারের প্রতিযোগিতায় নেমে পড়ে। সারা দিন না খাওয়ার অভাবটুকু ইফতারে পুষিয়ে নেওয়ার জন্য কি এই প্রতিযোগিতা? কে কত খেতে বা রান্না করতে পারে। ...

    Read More
  • ইফতারে স্বাস্থ্যকর ফল পেয়ারা

    4 weeks ago

    প্রতিদিনের ইফতারে ভাজাপোড়া কম খেয়ে বিভিন্ন ফল খাওয়া উত্তম বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাই আপনার ইফতারে থাকতে পারে অতি পরিচিত এই ফলটি। প্রতিদিন মাত্র ১টি পেয়ারা আপনার ...

    Read More
  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় লেবুর শরবত

    4 weeks ago

    গরমে যখন তীব্র দাবদাহে ক্লান্ত, ঠিক তখনই ইফতারে এক গ্লাস লেবুর শরবত হলে প্রাণটা জুরিয়ে যায়। শুধু শরবত হিসেবেই নয়, ওজন কমাতেও অনেকেই লেবুর শরবত খান। কিন্তু ...

    Read More
  • অ্যালার্জি ও সর্দি হয় যে কারণে

    4 weeks ago

    সাধারণত যারা বেশি পরিমাণে ঘরের বাইরে থাকেন তাদের মধ্যে সর্দি বা এলার্জির পরিমাণ বেশি লক্ষ্য করা যায়। তবে ঘরের ভেতরে অনেক বস্তু রয়েছে যেগুলো কারো মধ্যে এলার্জি ...

    Read More
  • প্রতিদিন কাঁচা পেঁয়াজ খেলে কি উপকার হয়?

    1 month ago

    ‘যত কাঁদবেন, তত হাসবেন’- পেঁয়াজের ক্ষেত্রে এই কথাটা দারুণভাবে কার্যকরী। কারণ এই সবজি কাটতে গিয়ে চোখ ফুলিয়ে কাঁদতে হয় ঠিকই। কিন্তু এই প্রাকৃতিক উপাদানটি শরীরেরও কম উপকার ...

    Read More
  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় হলুদ

    1 month ago

    রান্নাে মশলা হিসেবে অতি পরিচিত হলুদ। ভিটামিন সি, ভিটামিন ই, ভিটামিন কে, ক্যালসিয়াম, কপার, আয়রনের পাশাপাশি এতে আছে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টি অক্সিডেণ্ট, অ্যান্টিভাইরাল, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিকারসিনোজেনিক, অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি ...

    Read More
  • Read

    More